শিরোনাম

তানজিয়া সালমা এর কবিতা “অভিলাষ”

 প্রকাশ: ১৭ জুন ২০২১, ০৫:১৩ অপরাহ্ন   |   সাহিত্য


 
অভিলাষ

তানজিয়া সালমা

এ যাপিত জীবন আমার নয়
আমার নয় এ নিত্য আত্মযুদ্ধ,
আমার অন্তর্গত বোধের মাঝে যে জীবন
আমারই অলক্ষ্যে অলখজনের সুরে পথ ভোলে,
সেই ঐন্দ্রজালিক সুরের জীবনের প্রার্থনা ছিল আমার।

উত্তাল সমুদ্রের যাপিত জীবন চেয়েছিলাম আমি,
বিশাল আকাশকে বুকে করে রাখা যেত তবে অহর্নিশি।
ঝিনুকের ক্ষুদ্র জীবনেও ক্ষতি ছিলনা তেমন,
বুকের মাঝে মুক্তোর সুখ পুষে রেখে
বেঁচে থাকতাম গভীর জলের অতলে
মোহশূন্য নির্ভার বুদ্ধের জীবনে।

মেঘের মত ভেসে যাওয়া জীবন চেয়েছিলাম
তৃষ্ণায় জল, নিদাঘে ছায়া হয়ে প্রান্তর থেকে
প্রান্তরে চলিষ্ণু বন্ধনহীন যাযাবর জীবন। কিন্তু
আষ্টেপিষ্টে বাঁধা পড়ে আছি পাহাড়ের পাথুরে
অনড়, অচল, অথর্ব, জ্বরাক্রান্ত জীবনে।

আত্মায় যে শুদ্ধ সুরের অনুরণন শুনি কদাচিৎ
সে অপার্থিব সুরের জীবন ঈশ্বরের,
সেই ঐশ্বরিক জীবনকে আমার করে নিতে
চেয়েছি যতবার, ততবার পঞ্চভুতের শরীরে
ষড়রিপুর তাণ্ডব নিয়ে অতি সাধারণ হয়ে কেবল
বেঁচে থাকি আমি, সে বাঁচা বড় জৈবিক বাঁচা।

ভ্রণের জীবনচক্র পূর্ণ করে যে জীবন
তার সাথে ভেদ নেই কীটের জীবনের,
সে আমি চাইনি বলেই সিদ্ধার্থের মত ঘর
ছাড়বার ইচ্ছে লালন করেছি এতটা বছর।
জ্বরা, ব্যধি, মৃত্যুকে প্রত্যক্ষ করেছি আমি
শতবার, শতরূপে।
ঘরছাড়া পূর্ণিমার জন্য প্রতীক্ষায় থেকে থেকে
দেখেছি চন্দ্রভূক অমাবস্যার কুটিল হাসি।
তবুও পাখির মত মন নিয়ে এই জনারণ্যেই
কেটে যাবে আমার এবারের এই মানব জনম।